আবারও জ্বলে উঠলেন মার্কো আসেনসিও, করলেন জোড়া গোল। পুরোটা সময় জুড়ে দারুণ খেললেন মার্সেলো, লুকা মদ্রিচ, কাসেমিরোরাও।

কোনো অংশে কম যায়নি শুরুতে পিছিয়ে পড়ার পর দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়ানো ভালেন্সিয়াও। ফলাফল-লিগ শিরোপা ধরে রাখার অভিযানে দ্বিতীয় ম্যাচে পয়েন্ট হারাল রিয়াল মাদ্রিদ।

রোববার রাতে সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে লা লিগার রোমাঞ্চকর লড়াইটি ২-২ গোলে ড্র হয়েছে। একসময় তো পিছিয়েই পড়েছিল ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা। শেষ পর্যন্ত আসেনসিওর দ্বিতীয় গোলে ১ পয়েন্ট নিয়ে মাঠ ছাড়ে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোবিহীন রিয়াল।

স্প্যানিশ সুপার কাপের ফিরতি লেগে আচমকা শটে বার্সেলোনার গোলরক্ষককে চমকে দিয়েছিলেন আসেনসিও। ভালেন্সিয়ার বিপক্ষেও অনেকটা তেমনই এক গোলে দলকে এগিয়ে দেন তিনি।

দশম মিনিটে প্রতিপক্ষের ভুল পাস ধরে কিছুটা এগিয়ে ডি-বক্সের বাইরে থেকে দুজনের মধ্যে দিয়ে জোরালো শটে গোলটি করেন আসেনসিও।

ডি-বক্সের মধ্যে দুই পাশে ফাঁকায় ছিলেন করিম বেনজেমা ও ইসকো। কিন্তু তাদের পাস না দিয়ে শট নেন তরুণ এই ফরোয়ার্ড; জায়গায় দাঁড়িয়ে দেখা ছাড়া কিছুই যেন করার ছিল না গোলরক্ষকের।

আট মিনিট পরেই গোলটি শোধ করে দেয় ভালেন্সিয়া। বাঁ-দিক থেকে স্বদেশি ডিফেন্ডার তোনি লাতোর ক্রস পেয়ে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন স্প্যানিশ মিডফিল্ডার কার্লোস সোলের।

৩৭তম মিনিটে পাল্টা আক্রমণে বেনজেমার শট কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক। আর বিরতির খানিক আগে কাছ থেকে ক্রসবারের উপর দিয়ে উঁচিয়ে মারেন ফরাসি এই স্ট্রাইকার।

বিরতির পর আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে দারুণ জমে ওঠে লড়াই, ছড়ায় উত্তেজনা। ১৫ মিনিটের মধ্যে দুপক্ষের দুজন করে হলুদ কার্ড দেখেন যেখানে প্রথমার্ধে রেফারির পকেট থেকে কার্ড বের করতেই হয়নি।

পাঁচ মিনিটের ব্যবধানে দুদলই এগিয়ে যাওয়ার সুযোগ পায়; কিন্তু কাজে লাগাতে পারেনি কেউই। ৬৮তম মিনিটে লুকা মদ্রিচের শট ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক নেতো। আর ২৫ গজ দূর থেকে দানিয়েল পারেহোর ফ্রি-কিক দারুণ নৈপুণ্যে ঠেকিয়ে দেন কেইলর নাভাস।

৭৭তম মিনিটে পাল্টা আক্রমণে এগিয়ে যায় ভালেন্সিয়া। এ মৌসুমেই ইন্টার মিলান থেকে ধারে আসা ফরাসি মিডফিল্ডার কোনদোগবিয়া ১৬ গজ দূর থেকে নীচু শটে বের্নাবেউকে স্তব্ধ করে দেন।
পাঁচ মিনিট পর দলকে সমতায় ফেরান আসেনসিও; ডান দিক থেকে কোনাকুনি ফ্রি-কিকে লক্ষ্যভেদ করেন। এ যাত্রায়ও জায়গা থেকে একচুল নড়ার সময় পাননি নেতো।

কিছুক্ষণ পর আরেকটি সহজ সুযোগ নষ্ট করেন বেনজেমা। আসেনসিওর জোরালো শট এক জনের পায়ে লাগার পর ফাঁকায় পেয়ে যান বেনজেমা; কিন্তু লক্ষ্যভ্রষ্ট শট নেন তিনি।

যোগ করা সময়ে বেনজেমার আরেকটি হেড পোস্টে লাগলে পয়েন্ট হারানোর হতাশা নিয়েই মাঠ ছাড়তে হয় মৌসুমের শুরুতে উয়েফা সুপার কাপ ও স্প্যানিশ সুপার কাপ জেতা দলটিকে।

দুই ম্যাচে এক জয় ও এক ড্রয়ে রিয়ালের পয়েন্ট ৪। দুই জয়ে ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে রিয়াল সোসিয়েদাদ। বার্সেলোনা ও লেগানেসের পয়েন্টও ৬ করে।