ইঞ্জিনবিহীন একটি গ্লাইডার বিমান নিয়ে বায়ুমণ্ডলে ৫২ হাজার ১৭২ ফুট (প্রায় ১৬ কিলোমিটার) উচু পর্যন্ত পৌঁছানোর রেকর্ড গড়েছেন দুই পাইলট। আর্জেন্টিনার পেটাগোনিয়া অঞ্চলে তারা এই বিরল কীর্তি অর্জন করেন। প্রশ্ন উঠতে পারে, বিমানে যদি ইঞ্জিন না থাকে তবে সেটি আকাশে ওড়ে কিভাবে। পাইলটরা জানিয়েছেন, মেরু অঞ্চলের বায়ুপ্রবাহকে ব্যবহার করে বিশেষভাবে নির্মিত এই গ্লাইডার বিমান নিয়ে তারা আকাশে উড়েছেন। ঘুড়ি যেভাবে বায়ুপ্রবাহের বিপরীত দিকে বল প্রয়োগ করে ক্রমাগত শূন্যে ওঠে, অনেকটা সেভাবে। তাদের চূড়ান্ত লক্ষ্য ৯০ হাজার (প্রায় সাড়ে ২৭ কিলোমিটার) ফুট উপরে ওঠা।

রবিবার এই নতুন রেকর্ড গড়ার পর এই প্রকল্পের চিফ এক্সিকিউটিভ এড ওয়ারনক বলেন, বায়ুমণ্ডলের রহস্যময় শক্তিকে ব্যবহার করে অবিশ্বাস্য সব কীর্তি অর্জন করা সম্ভব। আমরা সেটাকে নতুন মাত্রায় নিয়ে যেতে চাই। আমাদের যাত্রা কেবল শুরু। আরো নতুন বিস্ময় উপহার দিতে চাই। তিনি জানান, এই উচ্চতায় পৌঁছাতে দুই পাইলটকে ছয় ঘণ্টা ধরে আকাশে থাকতে হয়েছে। এই প্রকল্পে অর্থায়ন করেছে ইউরোপীয় উড়োজাহাজ কোম্পানি এয়ারবাস। বিমানটির ওজন প্রায় ৮১৬ কিলোগ্রাম। এতে বিশেষভাবে নির্মিত দুটি ডানা আছে যা ৮৪ ফুট প্রশস্ত। জিম পেইন এবং মরগান স্যান্ডারকক নামের দুই পাইলট উড়ার সময় লাইফ সাপোর্ট সিস্টেম, প্যারাস্যুট ও বিভিন্ন যন্ত্রপাতি নিয়ে গিয়েছেন সম্ভাব্য সব বিপদ এড়ানোর জন্য। তারা বলেছেন, ইঞ্জিনবিহীন বিমানে সর্বোচ্চ ৩৬ কিলোমিটার পর্যন্ত উপরে ওঠা সম্ভব।