লিভারপুল থেকে বার্সেলোনার ট্রান্সফার ইতিহাসে রেকর্ড মূল্যে ব্রাজিলিয়ান ফুটবলার ফিলিপে কুতিনহোকে দলে ভেড়ানোর পর কলম্বিয়ান ডিফেন্ডার ইয়ারি মিনাকে ড্রেসিংরুমের নতুন সদস্য হিসেবে নিয়োগ দিলো তারা। ব্রাজিলিয়ান ক্লাব পালমেইরাস থেকে মিনাকে উড়িয়ে আনে বার্সেলোনা।

বৃহস্পতিবার দুপুরেই চুক্তির আনুষ্ঠানিকতা সেরে ফেলা হয়েছে। চুক্তিপত্রে সই করে ইয়ারি মিনা হয়ে গেছেন মেসি-সুয়ারেজ-কুতিনহোদের সতীর্থ।
বার্সেলোনার অফিসিয়াল ওয়েবসাইটেই এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নিশ্চিত করা হয়েছে কলম্বিয়ান এই ডিফেন্ডারের সঙ্গে চুক্তি সেরে ফেলার বিষয়টি। ২৩ বছর বয়সী ইয়ারি মিনার সঙ্গে বার্সার চুক্তিটা ১১.৮ মিলিয়ন ইউরোর। ২০২৩ সাল পর্যন্ত তার চুক্তির মেয়াদ।
মিনার যোগ্যতা নিয়েও কোনো সন্দেহই নেই বার্সা কর্তাকর্তাদের। ব্রাজিলের পালমেইরাসের হয়ে খেলা কলম্বিয়ান তারকা সহজেই বার্সাতে খাপ খাইয়ে নিতে পারবেন বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে দলটি, ইয়েরি মিনা ইউরোপের ফুটবলে নিজের যোগ্যতা প্রমাণের জন্যই বার্সায় এসেছে। এ কলম্বিয়ানের যোগ্যতা নিয়েও কোন সন্দেহ নেই।
কুতিনহোর সঙ্গে চুক্তিটা যেখানে ১৬০ মিলিয়ন ইউরোর, সেখানে ১১.৮ মিলিয়ন ইউরোর চুক্তি বড় কোনো ঘটনা নয়। তবে এই চুক্তিটা প্রমাণ করে দিল, বার্সেলোনার নতুন খেলোয়াড় ক্রয়ের ক্ষুধা কতটা তীব্র।
এরপরও বার্সার নতুন খেলোয়াড় ক্রয়ের ক্ষুধা মেটেনি। স্প্যানিশ গণমাধ্যমের খবর, অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের ফরাসি ফরোয়ার্ড অঁতোয়ান গ্রিজমানকেও কিনতে মরিয়া বার্সেলোনা।
বার্সার খেলোয়াড় ক্রয়-ক্ষুধা কোথায় গিয়ে মেটে, সেটা বলবে সময়। তবে ২৩ বছর বয়সী ইয়ারি মিনার সঙ্গে চুক্তি করতে পেরে খুশি বার্সা। ক্লাব বার্সার চেয়েও বেশি খুশি ইয়ারি মিনা। কলম্বিয়ান ডিফেন্ডার সেই ছোটবেলা থেকেই নাকি স্বপ্ন দেখতেন বার্সেলোনার মতো বিশ্বসেরা ক্লাবে খেলার।
তরুণ এই ডিফেন্ডারের সঙ্গে চুক্তির বিষয়ে অনেক দিন আগে থেকেই কথা-বার্তা চালিয়ে আসছিল বার্সেলোনা। কিন্তু পালমেইরাস রাজি হচ্ছিল না। অবশেষে বুধবার সকালে ব্রাজিলিয়ান ক্লাবটি ইয়ারি মিনাকে বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি করার অনুমতি দেয়।
ক্লাবের অনুমতি পেয়ে এক মুহূর্ত অপচয় করেননি ইয়ারি মিনা। সঙ্গে সঙ্গেই চড়ে বসেন বার্সেলোনাগামী বিমানে। রাতে বার্সেলোনায় পৌঁছে দুপুরেই সেরে ফেললেন চুক্তির আনুষ্ঠানিকতা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here