এমন দুটি ক্যাচ মিস করেছিলেন মিরাজ, যা বলতে গেলে ক্ষমার অযোগ্য। প্রথমে মুস্তাফিজের বলে ম্যাক্সওয়েলের ক্যাচ এবং পরে হিল্টন কার্টরাইটের ক্যাচ ফেললেন নিজের বলেই। অবশেষে কার্টরাইটকে (১৮) ফিরিয়ে প্রায়শ্চিত্ত করলেন মিরাজ। স্লিপে দারুণ ক্যাচ নিলেন সৌম্য সরকার। চা বিরতির আগে অজিদের স্কোর ৫ উইকেটে ৩২১। অতিথিরা ১৬ রানে এগিয়ে।

বাংলাদেশ শিবিরে দিনের প্রথম সাফল্য আসে হ্যান্ডসকম্বের রান আউটে। সাকিব আল হাসানের বুদ্ধিদীপ্ত থ্রোতে ১৪৪ বলে ৮২ রান করে আউট হয়ে যান হ্যান্ডসকম্ব। হ্যান্ডসকম্বের বিদায়ের পর কিছুটা ভয় পেয়ে যান ওয়ার্নার। ৯৯ রানে বেশ কিছুক্ষণ ব্যাট করেন তিনি। অবশেষে নাসিরকে বাউন্ডারি হাঁকিয়ে টানা দ্বিতীয় টেস্টে সেঞ্চুরি হাঁকান দুইবার জীবন পাওয়া ওয়ার্নার।

তাকে আউট করে জন্মদিনে দলকে সেরা উপহার দেন ‘কাটার মাস্টার’ মুস্তাফিজুর রহমান। গালিতে দুর্দান্ত ক্যাচ নেন ইমরুল কায়েস।
আজ বুধবার তৃতীয় দিনের প্রথম সেশন ভেসে যায় বৃষ্টিতে। টানা দেড় ঘণ্টার প্রবল বৃষ্টির পর মাঠ খেলার উপযোগী করা হয়। জহুর আহমেদ স্টেডিয়ামের ড্রেনেজ ব্যবস্থা দেশের সবগুলো স্টেডিয়ামের মধ্যে সেরা। তাই বৃষ্টি থামার আধ ঘণ্টার কিছু বেশি সময় পরই মাঠ খেলার উপযোগী হয়। বেলা সোয়া ১টায় তৃতীয় দিনের খেলা মাঠে গড়ায়।
নিউজজি/সুমো