ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে অর্থায়ন করবে চীনা প্রতিষ্ঠান সিনো হাউড্রো। ছয় মাসের মধ্যে এ বিষয়ে চুক্তি করবে মূল বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান ইটাল থাই।

বৃহস্পতিবার দুপুরে সেতুভবনে ইটাল থাই ও সিনো হাইড্রোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকশেষে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এসব কথা জানান। মন্ত্রী বলেন, চীনা প্রতিষ্ঠানটি প্রকল্পের ৪৯ ভাগ কাজে অর্থায়ন করতে রাজি হয়েছে, এ বিষয়ে ছয় মাসের মধ্যে চুক্তি হবে।

মন্ত্রী আরো জানান, প্রকল্পের জমি অধিগ্রহণ এবং ক্ষতিপূরণ দেবার কাজ শেষ হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৫৮৯টি পাইল এবং ৪৩টি পাইল ক্যাপ তৈরি হয়েছে। ২০২০ সালের ডিসেম্বরেই কাজ শেষ হবে।

রাজধানীর যানজট নিরসনে বিমানবন্দর থেকে বনানী হয়ে মগবাজার দিয়ে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার উড়ালসড়ক নির্মাণের কাজ শুরু ২০১৫ সালে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় নয় হাজার কোটি টাকা। ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে অর্থায়ন করবে চীন আপডেটঃ জুলাই ০৬, ২০১৭ ১৮:১৩ ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের ম্যাপ ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে অর্থায়ন করবে চীনা প্রতিষ্ঠান সিনো হাউড্রো। ছয় মাসের মধ্যে এ বিষয়ে চুক্তি করবে মূল বিনিয়োগকারী প্রতিষ্ঠান ইটাল থাই। বৃহস্পতিবার দুপুরে সেতুভবনে ইটাল থাই ও সিনো হাইড্রোর কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকশেষে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এসব কথা জানান। মন্ত্রী বলেন, চীনা প্রতিষ্ঠানটি প্রকল্পের ৪৯ ভাগ কাজে অর্থায়ন করতে রাজি হয়েছে, এ বিষয়ে ছয় মাসের মধ্যে চুক্তি হবে। মন্ত্রী আরো জানান, প্রকল্পের জমি অধিগ্রহণ এবং ক্ষতিপূরণ দেবার কাজ শেষ হয়েছে। এখন পর্যন্ত ৫৮৯টি পাইল এবং ৪৩টি পাইল ক্যাপ তৈরি হয়েছে। ২০২০ সালের ডিসেম্বরেই কাজ শেষ হবে। রাজধানীর যানজট নিরসনে বিমানবন্দর থেকে বনানী হয়ে মগবাজার দিয়ে যাত্রাবাড়ী পর্যন্ত ২০ কিলোমিটার উড়ালসড়ক নির্মাণের কাজ শুরু ২০১৫ সালে। এতে ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় নয় হাজার কোটি টাকা।