ভারতের মুসলিম নাগরিকদের ‘তিন তালাক’ বলেই স্ত্রীকে ছেড়ে দেয়ার আইনটি বাতিলের প্রস্তাব পাস হলো লোকসভায়। এটাকে শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে মেনে নিয়েছে লোকসভা।
লোকসভায় বৃহস্পতিবার লোকসভায় কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ মুসলিম উইমেন (প্রোটেকশন অফ রাইটস অ্যান্ড ম্যারেজ) নামক বিলটি পেশ করেন।

এখন থেকে ‘তিন তালাক’ বললেই ভারতীয়দের শাস্তি পেতে হবে

অল ইন্ডিয়া মজলিসে মুত্তাহিদুল মুসলেমিন (এআইএমআইএম) ও সমাজবাদী পার্টি, বিজু জনতা দলসহ আঞ্চলিক দলগুলোর অনেকেই বিলের বিরোধিতা করে। এআইএমআইএম’র প্রধান আসাদুদ্দিন ওয়েইসি সংশোধনী পেশ করেন। তা ভোটাভুটিতে খারিজ হয়ে যায়।
রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, নারী ক্ষমতায়ন, সমাজে নারীর প্রতি শ্রদ্ধা এবং নারী স্বাধীনতার লক্ষ্যে এটি অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য একটি পদক্ষেপ। এই বিলের সঙ্গে শুধু নারীর প্রতি সুবিচারের বিষয়টি জড়িত, এর সঙ্গে কোনো ধর্ম বা সম্প্রদায়ের কোনো যোগ নেই।
তিন তালাক প্রথা অবসান করতে যেকোনো পদক্ষেপের সমর্থক বলে জানালেও বিলে কয়েকটি সংশোধনী দাবি করেছে কংগ্রেস। তিন তালাক দেয়ায় যদি তিন বছরের জন্য জেলে যেতে হয়, তাহলে সেই ব্যক্তি কীভাবে তার পরিবারের ভরণপোষণ চালাবে তা জানতে চাওয়া হয়েছে কংগ্রেসের পক্ষ থেকে।
আসাদুদ্দিন ওয়েইসির দাবি তিন তালাক বিল মুসলিম মহিলাদের প্রতি অবিচার করছে। বিলের খসড়া তৈরিকে মুসলিম সমাজের মতামত নেয়া হয়নি বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।
লোকসভায় নিজেদের সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরে বিজেপি সহজেই তিন তালাক বিল পাশ করে নিতে পারলেও বিলটি বাধার মুখে পড়তে রাজ্যসভায়। রাজ্যসভায় বিল পাশ না হলে ফের তা যাবে সংসদীয় কমিটির কাছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here