শুরুটা থিয়েটারের মাধ্যমে। পরবর্তীতে টিভি নাটকের মাধ্যমে পেয়েছেন তারকাখ্যাতি। একাধারে নাট্যকার, অভিনেতা হিসেবে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন বৃন্দাবন দাস। আজ এই গুণী নাট্যজনের জন্মদিন।

বৃন্দাবন দাস

বৃন্দাবন দাসের স্ত্রী ও অভিনেত্রী শাহনাজ খুশী জানান, রাত ১২টায় পারিবারিকভাবে জন্মদিনের কেক কাটা হয়।
এই অভিনেত্রী বলেন, চঞ্চল চৌধুরী ও অভিনেতা ফজলুর রহমান বাবু আমাদের পরিবারেরই অংশ। পারিবারিকভাবে ঘরোয়া আয়োজনে রাতে কেক কাটা হয়েছে। সেখানে তারা দুজন উপস্থিত হয়েছিলেন।
কেক কাটার পর রাতে শাহনাজ খুশী তার ফেসবুকে লিখেন, তোমার সঙ্গে খেয়ে না খেয়ে পথ চলা আর তুমি বেঁচে আছো, সুস্থ আছো এটা অনুভব করাই আমার প্রেম এবং প্রতিজ্ঞার ইস্তেহার। তুমি এ পৃথিবীতে নাই, অথচ তোমার জন্ম তারিখ রয়ে গেছে এমন একটা দিনও যেন আমার দেখতে না হয়। তুমি আমার উৎসবের সুখ নয়, অভ্যাসের সুর্যোদয়। শুভ জন্মদিন বৃন্দাবন।
স্কুলে পড়ার সময় থেকেই লেখালেখির সঙ্গে যুক্ত হন বৃন্দাবন দাস। ‘মুক্ত নাটক’র মাধ্যমে থিয়েটারের পথচলা শুরু হয়। পরবর্তীতে ঢাকায় এসে যুক্ত হন আরণ্যক নাট্যদলের সঙ্গে।
তবে টেলিভিশন নাট্যকার ও অভিনেতা হিসেবেই দেশজুড়ে পরিচিতি পান। তার উল্লেখযোগ্য টিভি নাটকের মধ্যে রয়েছে- বন্ধুবরেষু, ঘর-কুটুম, আলতা সুন্দরী, জামাই মেলা, হাড়কিপটে, মোহর শেখ, সাকিন সারি সুরি, চৈতা পাগল, পাত্রী চাই, পত্র মিতালী, সার্ভিস হোল্ডার ইত্যাদি।

ব্যক্তিগত জীবনে বৃন্দাবন দাস ১৯৯৪ সালের ১৯ জানুয়ারি ভালোবেসে শাহনাজ কবির খুশীকে বিয়ে করেন। শাহনাজ খুশী অভিনেত্রী হিসেবেও মানুষের কাছে খুবই জনপ্রিয়। বৃন্দাবন-খুশীর দুই সন্তান দিব্য জ্যোতি ও সৌম্য জ্যোতি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here