বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফিরতে চেয়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিধ্বংসী পেসার ডেল স্টেইন। ক’দিন আগে নিজ মুখেই এ কথা জানিয়েছিলেন তিনি। তবে স্টেইন ভক্তদের জন্য দুঃসংবাদ! সেই সিরিজে খেলা হচ্ছে না তার। অর্থাৎ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ফেরা দীর্ঘায়িত হচ্ছে অভিজ্ঞ এ পেসারের।
টাইগারদের বিপক্ষে সিরিজে ফিরতে প্রস্তুতি হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকার প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটের ওপেনিং রাউন্ডে খেলতে চেয়েছিলেন স্টেইন। আসছে মঙ্গলবার নিজ দল টাইটানসের হয়ে ডলফিনের বিপক্ষে খেলার মনোস্থির করেছিলেন তিনি। তবে হুট করে তা না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন প্রোটিয়া এ বিধ্বংসী পেসার।
এতে না খেলার ব্যাখ্যায় ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে স্টেইন বলেন, আমি এখনই দীর্ঘ পরিসরের খেলায় ফিরতে চাই না। আমি বোলিং ভালো করছি। তবে ৪ দিনের ম্যাচ বা টেস্ট খেলার মতো পরিশ্রম করিনি। তাই প্রথম শ্রেণির ম্যাচটি না খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
এ ভাষ্যতেই প্রতীয়মান, ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হতে যাওয়া বাংলাদেশের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে স্টেইনের খেলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। তবে দ্রুত ফিরতে চান সীমিত ওভারের ক্রিকেটে। তিনি বলেন, ৪ দিনের ম্যাচ খেললে হয়তো টেস্ট দলে সুযোগ পাওয়া যেত। তবে ফের ইনজুরিতে পড়ে নিজে ও দলকে ঝুঁকিতে ফেলতে চাই না। ফের ক্রিকেটে ফিরতে সীমিত ওভারের কিছু ম্যাচই আমার জন্য বরং ভালো।
ক্যারিয়ারটা দীর্ঘায়িত করতেই সাময়িকভাবে দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেট এড়িয়ে চলছেন স্টেইন। প্রোটিয়া এ ডানহাতি পেসার বলেন, আমি আরো কয়েক বছর খেলতে চাই। আত্মবিশ্বাস আছে আমি তা পারব। এখন দীর্ঘ পরিসরের ক্রিকেট আমার জন্য অতিরিক্ত বোঝা হয়ে যায়। তাই আপাতত সাদা বলের অপেক্ষায় থাকতে হচ্ছে।
সবকিছু ঠিক থাকলে ২ টেস্ট, ৩ ওয়ানডে ও ২ টি-টোয়েন্টির পূর্ণাঙ্গ সিরিজ খেলতে দক্ষিণ আফ্রিকার উদ্দেশে ১৬ সেপ্টেম্বর দেশ ছাড়বে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। এ সিরিজে টেস্টে না খেললেও ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টিতে ফেরার ইঙ্গিত-ই যেন দিলেন স্টেইন। তবে তাতেও না ফিরতে পারলে ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি গ্লোবাল লিগে খেলবেন অভিজ্ঞ এ পেসার। এটি প্রায় জোর দিয়েই বলা যায়। আসছে নভেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকাতেই আইপিএলের আদলে বসছে এ লিগ। এতে কেপটাউন নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলবেন তিনি।
গেলো নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজে কাঁধের হাড় ভেঙে যাওয়ার পর সব ধরনের ক্রিকেট থেকে দূরে রয়েছেন স্টেইন। দক্ষিণ আফ্রিকার সর্বকালের সেরা উইকেটশিকারি হতে এ পেসারের আর দরকার ৫ উইকেট।