ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলিময় ছিল শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট। সবদিক থেকে লঙ্কানদের থেকে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত জয় বঞ্চিত হলো ভারত। আর এ জয় রুখে দিয়েছেন লঙ্কান দুই ডি সিলভা। আহত অবসর হবার আগে ধনানঞ্জয়া ডি সিলভার ১১৯ ও রোশেন সিলভার অপরাজিত ৭৪ রানে ড্র হয়েছে দিল্লি টেস্ট।

ধনানঞ্জয়া ডি সিলভা

জয়ের স্বপ্ন দেখেও দুই সিলভার দুর্দান্ত ব্যাটিং-এর কারণে সিরিজের তৃতীয় টেস্টটি ড্র করতে বাধ্য হয় টিম ইন্ডিয়া। তারপরও নাগপুরে দ্বিতীয় টেস্ট জয়ে তিন ম্যাচের সিরিজ ১-০ ব্যবধানে জিতে নিয়েছে রবি শাস্ত্রীর শিষ্যরা।
ভারতের ছুঁড়ে দেয়া ৪১০ রানের টার্গেটে চতুর্থ দিন শেষে ৩১ রানের ব্যবধানে ৩ উইকেট হারিয়েছিল শ্রীলঙ্কা। তাই সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টেস্ট জয়ের জন্য পঞ্চম ও শেষ দিনে লঙ্কানদের দরকার পড়ে আরও ৩৭৯ রান। ভারতের প্রয়োজন পড়ে ৭ উইকেট।
আগের দিন ১৩ রান নিয়ে শেষ করেছিলেন ধনানঞ্জয়া ডি সিলভা। এ সময় তার সঙ্গী ছিলেন সাবেক অধিনায়ক অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুজ। চতুর্থ দিনের শেষে রানের খাতা খুলতে না পারলেও পঞ্চম দিন ঠিকই খুলেন তিনি। কিন্তু ১ রান করেই প্যাভিলিয়নে ফেরত যান ম্যাথুজ। তাকে ফিরিয়েছেন আগের দিন ২ উইকেট নেয়া ভারতের স্পিনার রবীন্দ্র জাদেজা।
৩৫ রানে চতুর্থ উইকেট হারানোর পর প্রতিরোধ গড়ে তুলে শ্রীলঙ্কা। অধিনায়ক দিনেশ চান্ডিমালকে নিয়ে ভারতীয় বোলারদের সামনে বুক উচিয়ে খেলতে থাকেন ডি সিলভা। স্বীকৃত বোলারদের পর মুরালি বিজয়কে দিয়ে এবং নিজেও হাত ঘুরিয়েছেন ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি। কিন্তু তাতেও কোন কাজ আসছিলো না।
শেষ পর্যন্ত দলীয় ১৪৭ রানে চান্ডিমালকে থামান ভারতের অফ-স্পিনার রবীচন্দ্রন অশ্বিন। ৩৬ রান করা চান্ডিমালকে বোল্ড করেন অশ্বিন। দলনেতার বিদায়ের পর ১১ ম্যাচের টেস্ট ক্যারিয়ারে তৃতীয় ও ভারতের বিপক্ষে প্রথম সেঞ্চুরির স্বাদ পান ডি সিলভা। তিন অংকে পা দিয়েও রোশেন ডি সিলভাকে নিজের ইনিংসটা বড় করছিলেন তিনি। কিন্তু ৭৬ ওভার শেষে আহত অবসর নিয়ে মাঠ ছাড়েন ডি সিলভা। ১৫টি চার ও ১টি ছক্কায় ২১৯ বলে ১১৯ রান করেন তিনি।
এরপর উইকেটরক্ষক নিরোশান ডিকবেলাকে নিয়ে দিনের বাকী সময় অসাধারণ ব্যাট করেছেন রোশেন ডি সিলভা। ২৭ ওভার অবিচ্ছিন্ন থেকে শ্রীলঙ্কাকে জয়ের সমান ড্র’র স্বাদ দেন রোশেন ডি সিলভা ও ডিকবেলা। রোশেন ১১টি চারে ১৫৪ বলে অপরাজিত ৭৪ ও ডিকবেলা ৬টি চারে ৭২ বলে অপরাজিত ৪৪ রান করেন। ভারতের জাদেজা ৩টি উইকেট নেন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর :
ভারত : ৫৩৬/৭ডি ও ২৪৬/৫ডি,
শ্রীলঙ্কা : ৩৭৩ ও ২৯৯/৫
ফল : ড্র
ম্যাচ ও সিরিজ সেরা : বিরাট কোহলি (ভারত)

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here