ইনজুরি থেকে ফেরার পর মুস্তাফিজুর রহমানের সেই বিস্ফোরক রূপ আর দেখা যায়নি। যে কাটার-স্লোয়ার ও ইয়র্কারে সাতক্ষীরা এক্সপ্রেস প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের ঘাম ছুটিয়ে দিতেন, সেগুলো এখন আর দেখা যাচ্ছে না। গতিও কিছুটা কমে এসেছে তাঁর। প্রতিপক্ষের জন্য এখন আর খুব একটা ভয়ঙ্কর বোলার নন তিনি। সব মিলিয়ে বেশ খারাপ সময়ই পার করলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটের এই উজ্জ্বল তারকা। তবে মুস্তাফিজ আশা করছেন, খারাপ দিন পার হয়ে আবার সুদিন ফিরবে তাঁর ক্যারিয়ারে। এমনটাই জানালেন কাটার মাস্টার।

বৃহস্পতিবার ভারতের বিপক্ষে নামার আগে মুস্তাফিজ জানালেন, নিজের সমস্যাগুলো কাটিয়ে ওঠার চেষ্টা করছেন তিনি। তিনি বলেন, ‘দেশের মাঠে আমার কাটারগুলো বেশি ভালো হয়। তবে এখানে সেগুলো কাজ করছে না। আমি চেষ্টা করে যাচ্ছি সমস্যাগুলো কাটিয়ে উঠতে।’

ভারতের বিপক্ষে নিজেদের সেরাটা দিতে মুখিয়ে আছেন এই বোলার। তিনি বলেন, ‘ভারতের বিপক্ষে জিততে হলে আমাদের সেরাটাই দিতে হবে।’ দলের বাকি ক্রিকেটাররাও নাকি ভারতের বিপক্ষে সেরাটা দিতে বেশ অপেক্ষা করে আছেন। তিনি বলেন, ‘সত্যি কথা বলতে কি, দল সেমিফাইনালে উঠেছে, এতে আমরা খুবই খুশি। খেলোয়াড়রা প্রত্যেকে নিজেদের জায়গা থেকে ভালো করেছে বলেই তা সম্ভব হয়েছে। সেমিতে ভারতকে প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছি আমরা। দলের সবাই ফুরফুরে মেজাজে আছে। আশা করছি সেমিতেও আমরা ভালো কিছু করতে পারব।’

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মুস্তাফিজের শুরুটা হয়েছিল দুর্দান্ত। ভারত-পাকিস্তান-দক্ষিণ আফ্রিকার ব্যাটসম্যানদের নাকানি-চুবানি খাইয়েছিলেন তিনি। ভারতীয় দলের বিপক্ষে পর পর দুই ম্যাচে পাঁচ উইকেট নিয়ে তাঁক লাগিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। ভালো ফর্মে থাকায় আইপিএলে ডাক পান সাতক্ষীরার এই ক্রিকেটার। জনপ্রিয় এই লিগে সেরা উদীয়মান ক্রিকেটারের পুরস্কারও জেতেন তিনি।

আইপিএল থেকে অনেক কিছুর সঙ্গে ইনজুরিও বয়ে আনেন তিনি। ইংল্যান্ডে অস্ত্রোপচারের পর ছয় মাস পুনর্বাসনে থাকেন মুস্তাফিজ। এরপর ক্রিকেটে ফিরলেও আর কখনই পুরনো ফর্মটা দেখাতে পারেননি কাটার মাস্টার। ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতেও বেশ অনুজ্জ্বল তিনি। পেয়েছেন দুটি মাত্র উইকেট। তার চেয়ে বড় কথা হচ্ছে, তার বলের বিপক্ষে সহজেই রান পাচ্ছেন ব্যাটসম্যানরা।

মুস্তাফিজ মানছেন, খারাপ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছেন তিনি। আশা করছেন শিগগিরই আবার সেরা সময়ে ফিরতে পারবেন। এজন্য সবার দোয়া ও সমর্থন চেয়েছেন তিনি।