দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে হার শেষে এর আগে বোলারদের কঠোর সমালোচনা করেন টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম। একই সুর ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার কণ্ঠে। রোববার সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে ২৭৯ রানের পুঁজি নিয়ে ১০ উইকেটে হার দেখে বাংলাদেশ। ওয়ানডেতে কোনো উইকেট না হারিয়ে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড এটি।

আর লজ্জার হার শেষে মাশরাফি বিন মুর্তজা বলেন, ‘বোলাররা নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি। এই উইকেটে ২৮০ রান নিয়েও জেতা সম্ভব ছিল। যদি আমরা শুরুতে উইকেট নিতে পারতাম। দুই দিক থেকেই আমরা যদি চাপ তৈরি করতে পারতাম, তাহলে হয়তো সম্ভব হতো। এসব উইকেটে যদি দুই পাশ থেকে পার্টনারশিপ বোলিং না করা যায় তাহলে উইকেট পাওয়া খুব কঠিন। তারপরও যা হয়েছে, তা আমাদের একেবারেই ভাবনার বাইরে। আমরা একটা উইকেটও নিতে পারিনি এখানে।’ এর আগে টেস্ট অধিনায়ক মুশফিকুর রহীম বোলারদের সমালোচনায় বলেন, ওভারে ছয় বলের অন্তত চারটি আপনি সঠিক জায়গায় ফেলবেন বলেই জাতীয় দলে খেলেন আপনি। অথচ তারা ওভারে দুই বলও সঠিক নিশানায় ফেলতে পারছে না।
রোববার প্রোটিয়ারা বাংলাদেশের দেয়া ২৭৯ রানের টার্গেট পার করে ৪২.৫ ওভারে। ওয়ানডেতে কোনো উইকেট না হারিয়ে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড এটি। আগের রেকর্ডে গত বছর বার্মিংহামের এজবাস্টন মাঠে শ্রীলঙ্কার দেয়া ২৫৫ রানের টার্গেটে ১০ উইকেটে জয় দেখে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। আর কিম্বারলিতে বড় হার শেষে ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বলেন, আমাদের নিয়ে অনেক কথা হবে স্বাভাবিক। তবে খেলোয়াড়দের লড়াই চালিয়ে যেতে হবে। আমরা সম্ভব সবই করবো। ফল আমাদের পক্ষে আসছে না, আর এ কারণে ইতিবাচক মনোভাব ধরে রাখা কঠিনই। কিম্বারলিতে অভিষিক্ত টাইগার পেসার মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন দেন ৫ ওভারে ৪৬ রান। এতে তিনি দেন ৭টি বাউন্ডারি। বাংলাদেশের সেরা বোলার সাকিব আল হাসান ডটবল দেন সাকুল্যে ১৫টি। আট ওভারের স্পেলে দেন ৪৮ রান। আগামীকাল পার্লে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মাঠে নামবে দু’দল।

সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে প্রোটিয়ারা বাংলাদেশের দেয়া ২৭৯ রানের টার্গেট পার করে কোনো উইকেট না হারিয়েই। ওয়ানডেতে বিনা উইকেটে সর্বোচ্চ রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড এটি। এর আগে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্টে সিরিজে ১৩১৬ রানে সাকুল্যে ১৩ উইকেট পান টাইগার বোলাররা। আর সফরে টাইগার বোলারদের দুর্দশা দেখে দুঃখিত স্বয়ং প্রতিপক্ষ অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। এখানকার তুমুল প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে প্রতিপক্ষ দলের জন্য সহমর্মিতার অবকাশ নেই। তবে ফাফ ডু প্লেসি বলেন, আমরা সত্যিই ভালো খেলছি। দল আরো একবার দাপুটে নৈপুণ্য দেখালো। আমি এমনটাই চাইছিলাম। তবে বাংলাদেশের বোলারদের জন্য আমাদের কিছুটা খারাপ লাগছে। এটা ছিল তাদের কঠিন এক সফর। তবে বাস্তবতা এমন নির্মমই। বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টেস্টে ৩৩৩ রানে জয় কুড়ায় দক্ষিণ আফ্রিকা। ডিন এলগার ও দক্ষিণ আফ্রিকার অভিষিক্ত ব্যাটসম্যান এইডেন মার্করাম গড়েন ওপেনিংয়ে ১৯৬ রানের জুটি। দ্বিতীয় টেস্টে ইনিংস ও ২৫৪ রানে হার দেখে টাইগাররা। চার সেঞ্চুরিতে প্রথম ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ ছিল ৫৭৩/৪ ডি.।