রাজধানীর কাফরুলে কলেজছাত্র মোমিন হত্যা মামলায় দুইজনের ফাঁসি ও ছয়জনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড বহাল রেখেছে হাইকোর্ট। বৃহস্পতিবার বিচারপতি ভবানী প্রসাদ সিংহ ও বিচারপতি মোস্তফা জামান ইসলাম সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের একটি ডিভিশন বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করে।

বুধবার এ মামলায় হাইকোর্টে শুনানি শেষে রায় ঘোষণার জন্য বৃহস্পতিবার দিন নির্ধারণ করে আদেশ দেয় আদালত। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন ডেপুটি এটর্নি জেনারেল ড. বশিরুল্লাহ, সহকারী এটর্নি জেনারেল বশির আহমেদ।

মতিঝিল থানার প্রাক্তন ওসি একেএম রফিকুল ইসলাম বহুল আলোচিত এ মামলার প্রধান আসামি ছিলেন। তিনি কারাবন্দি অবস্থায় ২০১৫ সালের ২২ ডিসেম্বর মৃত্যুবরণ করেন।
মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি হলেন- তারেক ওরফে জিয়া ও শাখাওয়াত হোসেন জুয়েল। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- মোহাম্মদ জাফর, শরিফ উদ্দিন, মনির হাওলাদার, হাসিবুল হক ওরফে জনি, হাবিবুর রহমান ওরফে তাজ, ঠোঁট উঁচা বাবু।

২০০৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর ঢাকা কমার্স কলেজ ছাত্র মোমিনকে তাদের উত্তর ইব্রাহিপুর বাসার কাছে কলেজ যাওয়ার পথে গুলি করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা। বাড়ির সীমানা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ওসি রফিক সন্ত্রাসীদের দিয়ে ওই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছেন অভিযোগ করে কাফরুল থানায় হত্যা মামলাটি দায়ের করেন মোমিনের বাবা আবদুর রাজ্জাক (প্রয়াত)।
মতিঝিল থানার তৎকালীন ওসি এ কে এম রফিকুল ইসলামসহ ২৬ জনকে মামলায় আসামি করা হয়।

ঢাকার দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক মো. রেজাউল ইসলাম ২০১১ সালের জুলাই মাসে মোমিন হত্যা মামলার রায় ঘোষণা করেন। পরে এ মামলার ডেথ রেফারেন্সের (মৃত্যুদণ্ড নিশ্চিতকরণ) প্রয়োজনীয় নথি হাইকোর্টে পাঠানো হয়। বিচারিক আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করেন আসামিপক্ষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here