মানবাধিকারকর্মী সুলতানা কামালের সমালোচনা করে নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের এমপি শামীম ওসমান বলেছেন, ‘এরা মুখে বলে মুসলমান আবার এরাই ধর্মের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে দেশকে অশান্ত করার চেষ্টা করছে। এদের কারণেই জঙ্গিবাদ সৃষ্টি হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের মহানবী (সা:) বলে গেছেন ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করো না। ইদানিং কিছু কিছু ঘটনা আমাকে খুব কষ্ট দিচ্ছে। যেখানে সুপ্রিম কোর্ট জুডিশিয়াল কাউন্সিল ভাস্কর্য রিমুভের সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সেখানে সুফিয়া কামালের মেয়ে সুলতানা কামাল টকশোতে হঠাৎ করে বলে উঠলেন ভাস্কর্য না থাকলে দেশে কোনো মসজিদও থাকতে পারবে না।’

ইসলাম ধর্মে আঘাত করলে কাউকে আর ছাড় দেওয়া যাবে না বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি।

রোববার (৪ জুন) সরকারি তোলারাম কলেজে শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মচারীদের উদ্যোগে ইফতার ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন শামীম ওসমান।

তিনি বলেন, ‘আমাদের নারায়ণগঞ্জেও কিছু ছোট ছোট সুশীল দল আছে যারা মাঝে মাঝে অনেক বড় বড় কথা বলে ফেলে। ওরা ৪-৫ জন থেকে শুরু করে ২০-২১ জন বক্তৃতা দেয় আর শ্রোতা থাকে মাত্র এক জন। ওরা বেশিরভাগই মুসলমান হলেও ইসলাম ধর্মের অনুশাসনের বিরুদ্ধে কথা বলে। ওরা বলে সংবিধানে বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম দিয়ে শুরু করলে মুক্তিযুদ্ধে কেউ অংশগ্রহণ করতো না। তুমি ধর্ম মানো না, মানো না, কিন্তু কেউ আমার ধর্মকে আঘাত করতে পারবে না।’

তিনি আরো বলেন, রূপগঞ্জের অস্ত্র দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর ওপরও হামলা হতে পারতো। গভীর চক্রান্ত চলছে, দেশের স্বার্থে সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।

শামীম ওসমান বলেন, আমি আল্লাহ ছাড়া কাউকে ভয় পাই না। তাই কোনো অপশক্তি আমাকে পেছনের দিকে ঠেলে নিয়ে যেতে পারবে না।

এ সময় তিনি নিজের মায়ের কথা স্মরণ করে আবেগআপ্লুত হয়ে বলেন, যাদের বাবা-মা এই পৃথিবীতে নেই তারা বুঝেন বাবা-মা হারা সন্তানের কত কষ্ট। বাবা-মা সন্তানের প্রতি অসন্তুষ্ট হলে সেই সন্তানের কোনো ইবাদত আল্লাহ কবুল করেন না। তাই সকল শিক্ষার্থীদের বাবা-মার কথা মেনে চলার আহ্বান জানান শামীম ওসমান।

সরকারি তোলারাম কলেজের অধ্যক্ষ মধুমিতা চক্রবর্তীর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন শহর যুবলীগের সভাপতি শাহাদত হোসেন সাজনু, মহানগর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান রিয়াদ প্রমুখ।